নিউইয়র্ক গোলাপগঞ্জ সোসাইটির নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক সম্পন্ন।

জাহেদ জারিফ
নতুন নেতৃত্বকে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরণ করে নেয়ার প্রস্তুতি চলছিল পুরো মাসজোড়ে।অভিষেক অনুষ্ঠানকে চমকপ্রদ ও আকর্ষণীয় করে সাজাতে একের পর এক আলোচনা-পর্যালোচনা লেগেই ছিলো।সোসাইটির সবার সহযোগীতায় ও অক্লান্ত পরিশ্রমে ফলে আগত অতিথি সহ প্রবাসী গোলাপগঞ্জবাসী একটি ব্যতিক্রম,দৃষ্টিনন্দন অভিষেক অনুষ্টান উপভোগ করলেন।নেতৃত্বের পালাবদলে সোসাইটির নতুন নেতৃত্বকে বরণ ও সদ্য সাবেক নেতৃবৃন্দকে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত করা হয় গত ২৩ ফেব্রুয়ারি উডসাইডস্থ কুইন্স প্যালেস মিলনায়তনে।অভিষেক অনুষ্ঠানকে ঘিরে পুরো কমিউনিটির মধ্য উৎসাহ উদ্দীপনা আর প্রাণ চাঞ্চল্য দেখা দেয়।নির্ধারিত সময়ের আগে থেকে দূরের পথ পাড়ি দিয়ে সবাই অনুষ্ঠানস্থলে আসতে শুরু করলে অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বেই হল রুম কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে।স্কুল বন্ধ থাকায় স্কুলগামী ছাত্রছাত্রী ও মায়েদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো। অভিষেক অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মুহিবুর রহমান।পরে সমবেত কন্ঠে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত গাওয়া হয়।এবাদ চৌধুরী ও ওয়াহিদ পারভেজের যৌথ পরিচালনায় অতিথিবৃন্দ আসন গ্রহণ শেষে শুরু হয় নবনির্বাচিত কমিটির শপথ গ্রহণপর্ব।প্রধান নির্বাচন কমিশনার বীরমুক্তিযোদ্ধা ওহিদুর রহমান মুক্তা শপথপর্ব পরিচালনা করেন।শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন নবনির্বাচত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোমিত চৌধুরী ওমেল,সদ্য সাবেক কমিটির পক্ষ থেকে বক্তব্য প্রদান করেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ আতিকুল ইসলাম।অভিষিক্ত কমিটির পক্ষ থেকে উপস্থিত অতিথি সহ সবাইকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়েজ আহমদ চৌধুরী,সদস্য তুহিন আহমদ চৌধুরী।প্রধান অতিথির বক্তব্যে আজমল হোসেন কুনু গোলাপগঞ্জের সমৃদ্ধ ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রতি আলোকপাত করে সোসাইটির উত্তোরত্তর সাফল্য কামনা করেন।বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত সচিব সামীম আহমদ অনুষ্ঠানকে ঘিরে তাঁর মুগ্ধতার কথা বলেন এবং নতুন নেতৃত্বের সফলতা কামনা করেন,খ্যাতিমান সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদ ইব্রাহীম চৌধুরী খোকন বলেন আমার পরিচয়ের প্রশ্নে আমি সবসময়ই গোলাপগঞ্জ বলতে কোনো হীনমন্ম্যতায় ভোগিনা,গোলাপগঞ্জ পরিচয় দিতে পারা আমার জন্য গর্বের।সোসাইটির যেকোন প্রয়োজনে নেতৃবৃন্দকে সাহায্য সহযোগীতা আপসহীনভাবে করে যাবেন বলে উল্লেখ করেন।আরোও বক্তব্য প্রদান করেন কমিউনিটির পরিচিত মুখ কামাল আহমদ,এমাদ আহমদ চৌধুরী,আব্দুল হাসিব মামুন,ওহিদুর রহমান মুক্তা,আব্দুর রহিম বাদশা,ময়নুল হক চৌধুরী,তাজুল ইসলাম চৌ.,সুলেমান আহমদ চৌধুরী,আজিজুর রহমান বুরহান,ফয়জুর রহমান ফটিক,মহি উদ্দীন দেওয়ান,মুহিবুর রহমান চৌধুরী ।অভিষিক্ত কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট সাংগঠনিক ও ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক হেলিম আহমদ অতিথিবৃন্দ সহ উপস্থিত সবাইকে সোসাইটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান,বিশেষ করে স্কুলগামী ছাত্রছাত্রী ও তাদের মায়েদের অংশগ্রহণ কে তিনি সাধুবাদ জানান।তাদের স্বতস্ফূর্ত সমর্থন সোসাইটিকে আগামীতে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে নিয়ামক শক্তি হিসেবে কাজ করবে বলে উল্লেখ করেন ।নৈশভোজ শেষে শুরু হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দর্শক-শ্রোতাকে মাতিয়ে রাখেন নিউইয়র্কের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী।অনুষ্ঠানে বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে ছিলো কমিউনিটি হেল্পডেস্ক;যেখানে নবাগত প্রবাসীদের সুবিধার্থে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যসম্বলিত লিফলেট বিতরণ করা হয়।লিফলেটে আমেরিকায় সরকারী বেসরকারী চাকরী,ব্যবসা সহ আবাসন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য ছিলো।অভিষিক্ত কমিটির সভাপতি হেলিম আহমদের সাথে একান্ত আলোচনায় প্রতিবেদকের সাথে তিনি তাঁর অনুভুতি ও কর্ম পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে উল্লেখ করেন বহিঃবিশ্বে সিলেটের সর্ববৃহৎ সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশন সহ প্রবাসে অসংখ্য সংগঠনে কাজ করার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে নিউইয়র্ক গোলাপগঞ্জ সোসাইটিকে প্রবাসী গোলাপগঞ্জবাসীর আস্থা ও ভরসাস্থল হিসেবে গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য।সোসাইটির সাবেক ও বর্তমান সদস্যবৃন্দ সহ সকল গোলাপগন্জবাসীকে সাথে নিয়ে কমিউনিটির জন্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে সোসাইটির ভিত আরো মজবুত করবো।তিনি সোসাইটির সাথে সম্পৃক্ত প্রয়াত সকল নেতৃবৃন্দের মাগফেরাত কামনা করেন।

Advertisements