Advertisements
Skip to content

মহাকাশ যাত্রায় সরকারি আধিপত্য শেষ হলো

safe_image.php

যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি মহাকাশযান নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্সের তৈরি রকেটে চড়ে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছেন নাসার দু’জন নভোচারী। কোনো ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের তৈরি মহাকাশযানে করে নভোচারী পাঠানোর ঘটনা এটিই প্রথম। এ ছাড়া প্রায় এক দশক পর নিজ দেশের মাটি থেকে মহাকাশে গেলেন যুক্তরাষ্ট্রের নভোচারীরা। বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের ৩৯এ প্যাড থেকে স্পেসএক্সের তৈরি মহাকাশযানটি যাত্রা শুরু করে। ফ্যালকন ৯ নামের ওই রকেটে যে দু’জন মহাকাশচারী রয়েছেন তারা হলেন- ডগ হারলি ও বব বেহনকেন।

এর মাধ্যমে মহাকাশ যাত্রায় সরকারি আধিপত্য শেষ হলো বলে ধারণা করা হচ্ছে। এলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স এখন বাজার প্রসারে তৎপরতা শুরু করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের আরেক মহাকাশযান নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বোয়িং এরই মধ্যে দেশটির মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার সঙ্গে চুক্তি করেছে।

নিজ প্রতিষ্ঠানের তৈরি মহাকাশযানের যাত্রার সময় কেনেডি স্পেস সেন্টারে উপস্থিত ছিলেন মাস্ক। তিনি বলেন, ‘আমার ও স্পেসএক্সের সবার স্বপ্ন পূরণ হলো’। ফ্যালকন ৯-এর মহাকাশযাত্রা দেখতে সেখানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নিয়মিত যাত্রী নিয়ে মহাকাশযাত্রার আগে স্পেসএক্সের ক্রিউ ড্রাগন ক্যাপসুলটি নাসার সনদ পাবে। তার আগে এটিই শেষ পরীক্ষামূলক যাত্রা। গত বছর থেকেই ক্রিউ ড্রাগন ক্যাপসুল আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে কার্গো আনা নেওয়ার কাজ শুরু করেছিল।

গত বুধবার মহাকাশযানটি উড্ডয়নের কথা থাকলেও খারাপ আবহাওয়ার কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। পরে শনিবার তা উড্ডয়ন করে। মহাকাশ স্টেশনে পৌঁছাতে এর ১৯ ঘণ্টা সময় লাগতে পারে। সেখানে আগে থেকেই অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রের একজন ও রাশিয়ার দু’জন নভোচারী।

২০১১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের স্পেস শাটলের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে মহাকাশে নভোচারী পাঠানোর ক্ষেত্রে রাশিয়ার রকেট ব্যবহার করে আসছিল নাসা। ফলে গত এক দশকে নভোচারী নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের মাটি থেকে এটিই প্রথম মহাকাশযাত্রা।

Advertisements
%d bloggers like this: