Advertisements
Skip to content

প্রচারে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের চেয়ে অনেকাংশে এগিয়ে সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

 

trump_casa_v

 

শান্তি নেই রিপাবলিকানদের মনে। দলীয় প্রেসিডেন্টের নানা কর্মকাণ্ডে বীতশ্রদ্ধ যুক্তরাষ্ট্রের মানুষ। করোনাকাণ্ডে ট্রাম্পের নানা হঠকারিতা, ভুল সিদ্ধান্ত দেশটিকে চিহ্নিত করেছে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের দেশ হিসেবে, তেমনি করোনার এ ক্রান্তিকালে শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিক হত্যার বিরুদ্ধে উদ্ভূত বিক্ষোভে কার্যকর ভূমিকা পালনে ট্রাম্পের ব্যর্থতা আগামী নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার অবস্থানকে ফেলে দিয়েছে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের অনেক নিচে।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতেও চলছে নির্বাচনী তোড়জোড়। প্রচারে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের চেয়ে অনেকাংশে এগিয়ে সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ডেমোক্র্যাট শিবিরের এই প্রার্থী আগামী নির্বাচনে জয় পাবেন বলে একাধিক জরিপকারী সংস্থা বলছে, যার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে রিপাবলিকান শিবির ভাঙার মধ্য দিয়ে। জাতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের মধ্যে রিপাবলিকানদের অনেকেই জো বাইডেনকে সমর্থন দিচ্ছেন। ট্রাম্পের সমর্থক হিসেবে পরিচিত অনেককেই বাইডেনের পেছনে দেখা যাচ্ছে।

দলত্যাগের এই ঘটনার সঙ্গে জন বেলিঙ্গান তৃতীয় ও কেন ওয়াইনস্টেইন জড়িত রয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্র জানায়। এই দুজনেই জর্জ ডব্লিউ বুশের অধীনে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন। বেলিঙ্গান জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের উপদেষ্টা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেন। আর ওয়াইনস্টেইন হোমল্যান্ড সিকিউরিটির উপদেষ্টা ও এফবিআইয়ের সাবেক প্রধান রবার্ট মুয়েলারের চিফ অব স্টাফ ছিলেন। এই গ্রুপের তৃতীয় একজন রবার্ট ব্ল্যাকওয়েল। তিনি উভয় বুশের আমলেই শীর্ষ কর্মকর্তা ছিলেন। এদের পক্ষত্যাগের কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে ট্রাম্পের চারপাশে থাকা স্বৈরতান্ত্রিক মানসিকতার লোকজন। এমনকি ট্রাম্পকেও তারা বিপজ্জনক মনে করছেন।

আগামী সপ্তাহগুলোতে রিপাবলিকান পার্টি থেকে বের হয়ে ডেমোক্র্যাট শিবিরে যোগ দেওয়া ব্যক্তিরা নির্বাচনী প্রচারে প্রকাশ্যে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে। ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের আগেই তাদের প্রচারণায় দেখা যাবে। যারা ডেমোক্র্যাট শিবিরে যোগ দিচ্ছেন তাদের মধ্যে প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যান, জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ ও জর্জ ডব্লিউ বুশের অধীনে কাজ করেছেন এমন অনেকেই আছেন। অভিজ্ঞ এই রিপাবলিকানদের দলত্যাগের ঘটনা নির্বাচনী পরিস্থিতিকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এই পক্ষত্যাগী দলটি আগামী আগস্টে ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কনভেনশনে যোগ দিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ তখন জো বাইডেন আনুষ্ঠানিকভাবে পার্টির মনোনয়ন পাবেন। ট্রাম্পবিরোধী রিপাবলিকানদের অন্য গ্রুপগুলোও আগামী নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এই গ্রুপগুলোর মধ্যে একদিকে যেমন সুবিধাবঞ্চিতরা আছেন, তেমনি অনেকেই আছেন যারা ট্রাম্পের বিভিন্ন প্রকল্পের সঙ্গে বিরোধিতা করে বের হয়ে গেছেন, অথচ নিজ নিজ অঞ্চলে তাদের ব্যক্তি ইমেজ ভালো রয়েছে। ডেমোক্র্যাটরা অনেক দিন ধরেই এমন শীর্ষস্থানীয়দের দলে টানার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু রিপাবলিকানদের মধ্যকার অস্থিরতা ও সাম্প্রতিক ঘটনাবলি ডেমোক্র্যাটদের সহায়তা করছে। সূত্র : রয়টার্স।

Advertisements
%d bloggers like this: