Advertisements
Skip to content

যেসব ভুল করোনার ঝুঁকি বাড়াতে পারে

106363162_687746475105661_3174463123551190643_n

ছবি প্রতিকী 

 

 

করোনা সংক্রমণের মধ্যেই বিভিন্ন দেশ থেকে তুলে দেওয়া হচ্ছে লকডাউন। দেশে বিদেশে লকডাউনের মধ্যেই স্বাভাবিক জীবনযাপনের চেষ্টা চালাচ্ছেন সবাই। অনেকেই প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের হচ্ছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খুব জরুরি না হলে এই সময় বাইরে বের হওয়া মোটেও ঠিক নয়।

তাদের মতে, বাইরে বের হওয়ার  ক্ষেত্রে কিছু ভুল করোনা সংক্রমণের বিপদ বাড়াতে পারে। যেমন-

ফেস মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও টিস্যু না নেয়া : শুধু অফিসে বা কাজে যাবার সময় নয়, ঘরের বাইরে বের হওয়ার সময় মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। করোনার জীবাণু বাতাসে ভেসে বেড়ায় এটা কমবেশি সবারই জানা। আপনার দরজার বাইরে দিয়ে করোনা আক্রান্ত কেউ গেছেন কিন এটা আপনার জানা নাও থাকতে পারে। এ কারণে বের হওয়ার আগে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এছাড়া স্যানিটাইজার ও টিস্যুও সঙ্গে রাখুন।

ভাইরাস চলে গেছে এমন ভুল ভাবনা মাথায় রাখা : লকডাউন উঠে যাওয়া মানেই করোনার ভয় নেই এটা ভাবা ঠিক নয়। আগের মতোই সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখুন। বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে সব ধরনের সতর্কতামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।

দোকান খোলার সঙ্গে সঙ্গে কেনাকাটা করতে যাওয়া :  দোকানপাট খোলার সঙ্গে সঙ্গে কেনাকাটার জন্য তাড়াহুড়া করবেন না। মহামারিকালে প্রথমেই আপনার  অর্থনৈতিক সুরক্ষা প্রয়োজন যাতে অসুস্থ হতে চিকিৎসার খরচ বহন করতে পারেন।  এজন্য শপিং মলে গিয়ে অপ্রয়োজনীয় কিছু কেনা বা অহেতুক খরচ করা থেকে বিরত থাকুন।

বাইরের জিনিসপত্র স্পর্শ করা : লকডাউন উঠার পর অনেকেই ভাবছেন সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে গেছে। কিন্তু এই সময় বাইরের কোন কিছু স্পর্শ করা এবং কারো সংস্পর্শে আসার ব্যাপারে অনেক সচেতন হতে হবে। যত বেশি মানুষ অফিস করতে শুরু করবে তত বেশি নিজেকে বাঁচিয়ে চলতে হবে। সেক্ষেত্রে দুরত্ব বজায় রেখে কথা বলা, করমর্দন করা  থেকে বিরত থাকা- এসব ব্যাপারে আরো সতর্ক হোন।

করোনা সংক্রান্ত খবর থেকে দূরে থাকা : প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা জানা মনের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। তবে একদম না জানাটাও ঠিক নয়। করোনা মোকাবেলায় আপনার এলাকায় কী ধরনের সতর্কতা জারি করা হয়েছে,  লকডাউনের ক্ষেত্রে কী কী বিধিনিষেধ আছে সে গুলো জানা দরকার। লকডাউন উঠে গেলেও সারাক্ষণ করোনার খবর না জেনে দিনের একটা সময় সর্বশেষ পরিস্থিতির খবর রাখুন।  সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

Advertisements
%d bloggers like this: