Skip to content

চীনের ওপর নানা কারণে ক্ষিপ্ত যুক্তরাষ্ট্র দেশটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে।

 

pic

চীনের ওপর নানা কারণে ক্ষিপ্ত যুক্তরাষ্ট্র দেশটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কি ধরনের ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছেন, তা এখনই পরিষ্কার না হলেও বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, শিগগিরই এ বিষয়টি সবাই জানতে পারবে। খবর এনডিটিভির।

চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে মহামারি করোনাভাইরাস। এ প্রাণঘাতি ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। চীনের বিরুদ্ধে বরাবরই করোনা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের। এ নিয়ে টানাপড়েনের পাশাপাশি হংকংয়ে নতুন আইন জারি করে চীনের আরও নিয়ন্ত্রণ আরোপ, বেইজিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাংবাদিকদের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ, উইঘুর মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের মতো ঘটনায় ক্ষিপ্ত ট্রাম্প প্রশাসন বরাবরই হুমকি দিয়ে আসছে, চীনের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার।

এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি কেলেই ম্যাকেনানি বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চীনের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেবেন, তা আমি এখনই বলতে পারছি না। তবে আপনারা শিগগিরই শুনতে পারবেন কি শাস্তি পেতে যাচ্ছে চীন। এটি আমি নিশ্চিত বলতে পারি।

এর আগে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়েন বলেছেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই চীনের বিরুদ্ধে একটা ব্যবস্থা নেওয়া হবে। চীনের পক্ষে দাঁড়ানোর মতো প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নন। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পই সর্বপ্রথম বাণিজ্যিক ভারসাম্যহীনতা নিয়ে চীনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেন।

আগের দিন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইর পরিচালক ক্রিস্টোফার রে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ভবিষ্যতের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে চীন।

%d bloggers like this: